29.9 C
Chittagong
Tuesday, May 28, 2024
spot_img

ট্রেনে ভারত যাওয়ার খরচ বাড়ছে

ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে চলাচলকারী আন্তদেশীয় ট্রেন মৈত্রী এক্সপ্রেস, বন্ধন এক্সপ্রেস এবং মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া বাড়ছে। নতুন ভাড়া হার আগামী ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

রেলওয়ের উপপরিচালক (ইন্টারচেঞ্জ) মো. মিহরাবুর রশিদ খানের সই করা এ–সংক্রান্ত আদেশে বলা হয়েছে, ডলারের মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে সংগতি রেখে তিনটি ট্রেনের ভাড়া সমন্বয় করা হয়েছে। এ ছাড়া নতুন বাজেটে ভ্রমণ কর বৃদ্ধি পাওয়ায় তা ভাড়ায় যুক্ত হয়েছে।

রেলওয়ের তথ্য অনুসারে, ডলারের মূল্যবৃদ্ধির কারণে এর আগে গত ডিসেম্বরে ভাড়া বৃদ্ধি পায়। সে সময় সর্বোচ্চ ৬৬০ টাকা পর্যন্ত ভাড়া বেড়েছিল।

রেলওয়ে সূত্র জানিয়েছে, ডলারের মূল্যবৃদ্ধি ও ভ্রমণ করের সঙ্গে সমন্বয় করার লক্ষ্যে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ প্রতি মাসেই ভাড়া নির্ধারণ করে। বাংলাদেশ রেলওয়ে ছয় মাস পর পর ভাড়া সমন্বয় করে থাকে। তবে সম্প্রতি যে হারে ভাড়া বেড়ে গেছে, আগে এতটা বাড়ত না।

মৈত্রী এক্সপ্রেস

ঢাকা-কলকাতা পথে পরিচালিত সবচেয়ে পুরোনো ট্রেন মৈত্রী এক্সপ্রেস। ২০০৮ সালের পয়লা বৈশাখ এই ট্রেনের যাত্রা শুরু হয়। ট্রেনটি ঢাকা থেকে কলকাতায় যায় শুক্র, শনি, রবি, মঙ্গল ও বুধবার। একই দিনগুলোতে কলকাতা থেকে ঢাকায় আসে ট্রেনটি।  

এই ট্রেনে এসি (শীতাতপনিয়ন্ত্রিত) সিট ও এসি চেয়ার—এই দুই ধরনের আসনের ব্যবস্থা আছে। ১ জুলাই থেকে ঢাকা-কলকাতা পথে এই ট্রেনের এসি সিটের ভাড়া ৪ হাজার ১৯৫ টাকা থেকে ৬০০ টাকা বাড়িয়ে ৪ হাজার ৭৯৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এসি চেয়ারের ভাড়া ২ হাজার ৯৬৫ টাকা থেকে ৫৬৫ টাকা বাড়িয়ে ৩ হাজার ৫৩০ টাকা করা হয়েছে।

বন্ধন এক্সপ্রেস

২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর খুলনা-কলকাতা পথে বন্ধন এক্সপ্রেস চালু করা হয়। যশোরের বেনাপোল সীমান্ত হয়ে ট্রেনটি চলাচল করে। এই ট্রেনে এসি সিট ও এসি চেয়ার—এই দুই শ্রেণির আসন রয়েছে।

খুলনা-কলকাতা পথে এসি সিটের ভাড়া ৫৫০ টাকা বাড়িয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে ২ হাজার ৯০০ টাকা। আর এসি চেয়ারের ৫৩০ টাকা বাড়িয়ে ২ হাজার ২৬৫ টাকা করা হয়েছে।

বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনটি খুলনা থেকে রোববার ও বৃহস্পতিবার কলকাতায় যায়। একইভাবে কলকাতা থেকে রবি ও বৃহস্পতিবার খুলনায় আসে।

মিতালী এক্সপ্রেস

২০২১ সালের ২৬ মার্চ উদ্বোধন করা হয় মিতালী এক্সপ্রেসের। ট্রেনটি ঢাকা থেকে পশ্চিমবঙ্গের নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করে।

এই পথের ট্রেন রাতে চলাচল করে। এ জন্য ট্রেনটিতে শোয়ার ব্যবস্থা আছে। যা এসি বার্থ নামে পরিচিত। এ ছাড়া আছে এসি সিট ও এসি চেয়ার আসন।

এসি বার্থে যাতায়াতে জুলাই থেকে ভাড়া গুনতে হবে ৬ হাজার ৫৭০ টাকা। বর্তমানে এ ধরনের ব্যবস্থায় ভাড়া ৫ হাজার ৯১৫ টাকা। এসি সিটের নতুন ভাড়া হবে ৪ হাজার ১৭৫ টাকা। বর্তমান ভাড়া হচ্ছে ৪ হাজার ৬৫ টাকা। এই পথে এসি চেয়ারের ভাড়া ৩ হাজার ৭৮৫ টাকা করা হয়েছে। বর্তমানে যার ভাড়া ৩ হাজার ২১০ টাকা।

মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি সপ্তাহে দুই দিন চলাচল করে। ঢাকা থেকে নিউ জলপাইগুড়ি যায় সোম ও বৃহস্পতিবার। অন্যদিকে নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ঢাকায় আসে রবি ও বুধবার।

আন্তদেশীয় সব কটি ট্রেনেই পাঁচ বছর পর্যন্ত বয়সী শিশুদের জন্য ৫০ শতাংশ ছাড় রয়েছে। মৈত্রী ও মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেন দুটি ঢাকার সেনানিবাস স্টেশন থেকে ছেড়ে যায়।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

0FansLike
3,912FollowersFollow
21,800SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

Latest Articles